22 C
Dhaka
রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২৪
বিনোদনকানাডায় বাংলাদেশি ব্র্যান্ড: পণ্য ও সেবার গুণের দিকে নজর দিতে হবে

কানাডায় বাংলাদেশি ব্র্যান্ড: পণ্য ও সেবার গুণের দিকে নজর দিতে হবে

কানাডায় বাংলাদেশি অভিবাসীর সংখ্যা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে পণ্য এবং সেবাখাতে ‘বাংলাদেশি ব্র্যান্ড’কে জনপ্রিয় করে তোলার সুযোগ তৈরি হয়েছে। সেজন্য পণ্য এবং সেবার গুণগত মানোন্নয়নের দিকে নজর দিতে হবে। কানাডার বাজারে টিকে থাকতে হলে গুণে-মানে কানাডার স্ট্যান্ডার্ডে নিজেদের উন্নীত করতে হবে।

‘কানাডায় বাংলাদেশি ব্র্যান্ড, কেন নয়’ শীর্ষক এক ভার্চুয়াল আলোচনায় সংশ্লিষ্টখাতের প্রতিনিধিরা এ মতামত দিয়েছেন।

কানাডার বাংলা পত্রিকা ‘নতুনদেশ’ এর প্রধান সম্পাদক শওগাত আলী সাগরের সঞ্চালনায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারিত ‘শওগাত আলী লাইভ’ এ আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। স্থানীয় সময় বুধবার রাতে অনুষ্ঠিত এ আলোচনায় অংশ নেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ব্যবসায়ী ফায়েজ নুর ময়না, প্রকৌশলী রাশিদুল হাসান এবং আইনজীবী ব্যারিস্টার ওমর হাসান আল জাহিদ।

ব্যবসায়ী ফায়েজ নুর ময়না কানাডায় ব্যবসায়ী এবং পেশাজীবীদের সেবার মান নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে অস্বস্তি এবং অসন্তোষ আছে। এ অস্বস্তি এবং অসন্তোষ দূর করা না গেলে বাংলাদেশি পণ্য বা সেবাকে ব্র্যান্ড হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা কঠিন হবে।

তিনি বলেন, কানাডায় বাংলাদেশি কমিউনিটি বড় হচ্ছে, তারা নানা জায়গায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ছে। ফলে শহরের বিভিন্ন জায়গায় বাংলাদেশি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠছে। তিনি কানাডিয়ান নিয়ম কানুন সম্পর্কে পড়াশোনার পরামর্শ দিয়ে বলেন, সুদূরপ্রসারী পরিকল্পনা না থাকলে নিজের ব্যবসাকেই টিকিয়ে রাখা যাবে না।

প্রকৌশলী রাশিদুল হাসান পেশাদারিত্ব এবং গ্রাহকসেবার মানোন্নয়নের তাগিদ দিয়ে বলেন, গ্রোসারিসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দোকানগুলোকে এখন ওয়ালমার্ট, নোফ্রিল, মেট্রোর মতো সুপারস্টোরগুলোর সঙ্গে প্রতিযোগিতায় নামতে হচ্ছে। পণ্যে এবং গ্রাহকসেবার মানোন্নয়ন না করা গেলে এ প্রতিযোগিতায় তারা টিকে থাকতে পারবে না।

আইনজীবী ব্যারিস্টার ওমর হাসান আল জাহিদ বলেন, বাংলাদেশি কমিউনিটিকে কেবল চাকরির পেছনে না ছুটে ব্যবসার দিকে মনোযোগী হওয়া উচিৎ। যে ব্যবসাগুলো এক সময় গ্রিক, ইতালিয়ানদের দখলে ছিল সেগুলো এখন ভারতীয় এবং শ্রীলঙ্কানদের আধিপত্য। বাংলাদেশিরা সেভাবে ব্যবসায় এগিয়ে আসেনি।

তিনি বাংলাদেশি ব্যবসা এবং পেশাজীবীদের গ্রাহকসেবা ও পেশাদারিত্বের আরও উন্নয়নের সুযোগ রয়েছে- এমন মত দিয়ে বলেন, ভোক্তাদেরও পেশাদারিত্ব গ্রহণের মানসিকতা অর্জন করতে হবে। অন্য কমিউনিটিতে কিংবা সাদাদের কাছে গিয়ে তারা যে ব্যবহার করেন নিজ কমিউনিটিতে এসে তারা সেটি আর অনুসরণ করতে চান না।

নতুন দেশ এর প্রধান সম্পাদক শওগাত আলী সাগর আলোচনায় বলেন, কানাডায় প্রতিটি কমিউনিটির কোনো না কোনো পণ্য বা সেবা ব্র্যান্ড হিসেবে নানা কমিউনিটিতে জনপ্রিয় হয়েছে। বাংলাদেশি কোনো পণ্য বা সেবা ব্র্যান্ড হয়ে উঠতে পারেনি।

বাংলাদেশি ব্যবসায়ী এবং পেশাজীবীদের মধ্যে সচেতনতা তৈরি করতে কানাডায় ‘বাংলাদেশি ব্র্যান্ড’ এর পক্ষে নিয়মিত প্রচারণা চালাবেন বলে তিনি উল্লেখ করেন।

আরও পড়ুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মন্তব্য